মদপানে ছাত্রলীগ নেতাসহ তিনজনের মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার মেঘনা প্রতাপেরচর এলাকায় মদপানে ছাত্রলীগ নেতাসহ তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। তবে পরিবারের দাবি- খাদ্যে বিষক্রিয়ায় তাদের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (৯ জানুয়ারি) ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যান। এ ছাড়া আশঙ্কাজনক অবস্থায় আরও ছয়জন হাসপাতালে ভর্তি।

নিহতেরা হলেন, সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান মাসুমের ছোট ভাই উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান বাবু (৩২), তার গাড়ি চালক জৈনপুর এলাকার সিদ্দিক মিয়ার ছেলে তোফাজ্জল হোসেন (৪০) এবং মেঘনা কাদিরগঞ্জ এলাকার মোক্তার মিয়ার ছেলে মোহসিন (২৩)।

জানা গেছে, গত শুক্রবার রাতে ব্যক্তিগত অফিসে ছাত্রলীগ নেতা জাহিদ হাসান বাবুসহ ১০-১৫ জন মদ পান করেন। এ সময় ৯-১০ জন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাদের ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে শনিবার দুপুরে বাবুসহ তিনজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। বাবুর ভাই ইউপি চেয়ারম্যান মাসুম অভিযোগ করে বলেন, কারো ইন্ধনে আমার ভাইকে হত্যার উদ্দেশে শুক্রবার রাতে খাদ্যের সঙ্গে বিষক্রিয়া মেশানো হয়েছে। এতে বাবুসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। আরো পাঁচ-ছয়জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। প্রশাসনের কাছে ঘটনার তদন্তের দাবি জানাচ্ছি।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঢামেক হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত তিনজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মাসুমের ভাই বাবু রয়েছে। তারা কীভাবে মারা গেছে তা ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে এলে বলতে পারব।