সেই যুবককে ক্ষমা করে দিলেন চরমোনাই পীর

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীমের সঙ্গে এক মানসিক ভারসাম্যহীন যুবকের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিক চরমোনাই পীর ওই মানসিক ভারসাম্যহীন যুবককে ক্ষমা করে দেন। সোমবার (১১ জানুয়ারি) রাত ৮দিকে বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে মাহফিল চলাকালে এ ঘটনা ঘটে। উপজেলার রংঙ্গশ্রী ইউনিয়ন মুজাহিদ কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত সোমবার বাদমাগরিবের মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রধান অতিথি ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীমের বক্তব্য চলাকালে উপজেলার কাঠালিয়া গ্রামের মো. খলিলুর রহমানের ছেলে মেহেদী হাসান মাহফিলের মঞ্চে উঠে তার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচারণ করেন। তবে পরিবার মেহেদী হাসানকে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে দাবী করছেন।

প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সম্পাদনা: আমিনুল ইসলাম রোমান

সাব এডিটর

সেই যুবককে ক্ষমা করে দিলেন চরমোনাই পীর প্রকাশিত: ১০:৪০ পূর্বাহ্ণ, ১৩ জানুয়ারি, ২০২১

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীমের সঙ্গে এক মানসিক ভারসাম্যহীন যুবকের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিক চরমোনাই পীর ওই মানসিক ভারসাম্যহীন যুবককে ক্ষমা করে দেন। সোমবার (১১ জানুয়ারি) রাত ৮দিকে বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে মাহফিল চলাকালে এ ঘটনা ঘটে। উপজেলার রংঙ্গশ্রী ইউনিয়ন মুজাহিদ কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত সোমবার বাদমাগরিবের মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রধান অতিথি ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীমের বক্তব্য চলাকালে উপজেলার কাঠালিয়া গ্রামের মো. খলিলুর রহমানের ছেলে মেহেদী হাসান মাহফিলের মঞ্চে উঠে তার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচারণ করেন। তবে পরিবার মেহেদী হাসানকে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে দাবী করছেন।

এ বিষয় উপজেলা মুজাহিদ কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক এইচএম কাওসার আহম্মেদ জানান, চরমোনাই পীর সাহেব হুজুরের মাহফিল চলাকালে মো. খলিলুর রহমানের ছেলে মেহেদী হাসান মাহফিলের মঞ্চে উঠে তার সঙ্গে বেয়াদবি করেন।

উপজেলা মুজাহিদ কমিটির সহ-সভাপতি মাওলানা খলিলুর রহমান জানান, ভারসাম্যহীন একটি যুবক চরমোনাই পীর সাহেব হুজুরের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচারণ করে তবে হুজুর ওকে মাফ করে দিয়েছেন এবং সবাইকে মাফ করে দিতে বলেন।

মেহেদী হাসানের বাবা মো. খলিলুর রহমান বলেন, আমার ছেলে মানসিক ভারসাম্যহীন ও হুজুরের সঙ্গে খারাপ আচারণ করার পর পরই তাকে নিয়ে হুজুরের কাছে মাফ চাওয়াই। হুজুর ওকে মাফ করে দিয়েছেন। আল্লাহ যাতে ওকে ভালো করে দেন সেজন্য দোয়া করেন।

বাকেরগঞ্জ থানার ওসি আলাউদ্দিন জানান, মাহফিলের জন্য আমাদের কাছ থেকে কোনো প্রকার অনুমতি নেয়নি। মাহফিলে একটি অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছে তবে ওই ছেলে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানা গেছে।

কেএ/ডিএ